নানা অভিযোগ উঠেছে এয়ারপোর্ট থানার এ এসআই হানিফের নামে


 ডেস্ক রিপোর্টঃ এসএমপি সিলেট এর এয়ারপোর্ট থানার এসআই হানিফএবার অভিযোগ উঠেছে  তার বিরুদ্ধে প্রায় বছর ধরে ঘুষ বানিজ্য,বখরা বানিজ্য,তদন্ত   বানিজ্যসহ টাকার বিনিময়ে এমন কোন বানিজ্য নেই যা করছেন না তিনি

আইনের অপব্যবহার দরিদ্র জনগোষ্ঠির  সকল প্রকার আইনী হয়রানী নিপীড়নের অভিযোগ এয়ারপোর্ট থানার এসআই হানিফের নামে

নাম প্রকাশ না করার শর্তে  কয়েকজন জানান- এসআই হানিফের হয়রানী অত্যাচারে তারা সবসময় ভীত-সন্ত্রস্ত

 

 বারবার বদলী আদেশ হলেও অজ্ঞাত কারণে তা রদ বাতিল করে দেন তিনি সম্প্রতি তাকে  এসএমপির দক্ষিণ সুরমা থানায় বদলীর আদেশ দেওয়া হলেও তিনি বদলী হচ্ছেন না বদলী আদেশ আটকিয়ে রেখে বহাল তবিয়তে আছেন তিনি

 

 বদলী আদেশের সত্যতা  এয়ারর্পোট থানার ওসি খান মাইনুল জাকির স্বীকার করেন কিন্তু এস আই হানিফ তা অস্বীকার করে বলেন বদলীর কোন আদেশ আদৌ তার কাছে পৌঁছায়নি

 

নানা অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে আমাদের প্রতিবেদক এএস আই হানিফের সাথে সরাসরি ফোনে কথা বললে,তিনি এসব অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন,

আমি থানার অফিসে দাপ্তরিক কাজগুলো করে থাকি,বাইরে কাজ করার সুযোগ নেই আমার

 

এসময় এয়ারপোর্ট থানা অফিসার ইনচার্জ ( ওসিখান মোহাম্মদ মাইনুল জাকির বলেন,তিনি থানায় যোগদানের পর এরকম কোন অভিযোগ পাননিকর্মরত পুলিশদের সর্বোচ্চ সতর্ক করে দিয়েছেন,বর্তমানে থানার কার্যক্রম ফেয়ার ভাবে চলছে

ডেস্ক রিপোর্টঃ এসএমপি সিলেট এর এয়ারপোর্ট থানার এসআই হানিফএবার অভিযোগ উঠেছে  তার বিরুদ্ধে প্রায় বছর ধরে ঘুষ বানিজ্য,বখরা বানিজ্য,তদন্ত   বানিজ্যসহ টাকার বিনিময়ে এমন কোন বানিজ্য নেই যা করছেন না তিনি

আইনের অপব্যবহার দরিদ্র জনগোষ্ঠির  সকল প্রকার আইনী হয়রানী নিপীড়নের অভিযোগ এয়ারপোর্ট থানার এসআই হানিফের নামে

নাম প্রকাশ না করার শর্তে  কয়েকজন জানান- এসআই হানিফের হয়রানী অত্যাচারে তারা সবসময় ভীত-সন্ত্রস্ত

 

 বারবার বদলী আদেশ হলেও অজ্ঞাত কারণে তা রদ বাতিল করে দেন তিনি সম্প্রতি তাকে  এসএমপির দক্ষিণ সুরমা থানায় বদলীর আদেশ দেওয়া হলেও তিনি বদলী হচ্ছেন না বদলী আদেশ আটকিয়ে রেখে বহাল তবিয়তে আছেন তিনি

 

 বদলী আদেশের সত্যতা  এয়ারর্পোট থানার ওসি খান মাইনুল জাকির স্বীকার করেন কিন্তু এস আই হানিফ তা অস্বীকার করে বলেন বদলীর কোন আদেশ আদৌ তার কাছে পৌঁছায়নি

 

নানা অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে আমাদের প্রতিবেদক এএস আই হানিফের সাথে সরাসরি ফোনে কথা বললে,তিনি এসব অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন,

আমি থানার অফিসে দাপ্তরিক কাজগুলো করে থাকি,বাইরে কাজ করার সুযোগ নেই আমার

 

এসময় এয়ারপোর্ট থানা অফিসার ইনচার্জ ( ওসি)  খান মোহাম্মদ মাইনুল জাকির বলেন,তিনি থানায় যোগদানের পর এরকম কোন অভিযোগ পাননিকর্মরত পুলিশদের সর্বোচ্চ সতর্ক করে দিয়েছেন,বর্তমানে থানার কার্যক্রম ফেয়ার ভাবে চলছে

Post a Comment

[blogger]

MKRdezign

Contact Form

Name

Email *

Message *

Powered by Blogger.
Javascript DisablePlease Enable Javascript To See All Widget